ফরচুন নিউজ ২৪

মহিলার চুলে থুতু ক্ষমা চেয়েও গ্রেফতার জাভেদ হাবিব

1 min read

পানির অভাবে স্রেফ থুতু দিয়ে কীভাবে চুলের যত্ন নেওয়া যায়, প্রকাশ্য ওয়ার্কশপে তা শেখাতে গিয়ে ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেছেন বিখ্যাত হেয়ার স্টাইলিস্ট জাভেদ হাবিব। ভিডিও ভাইরাল হতেই ক্ষমা চেয়ে নিলেও রেহাই পাননি। তার বিরুদ্ধে দায়ের করা এফআইআরে দ্রুত পদক্ষেপ নিল পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে হাবিবকে।

এক মহিলার চুলে থুতু ছিটিয়ে এবার তিনি জেলে। ফ্যাশন দুনিয়া থেকে এই ঘটনার জল গড়াল জাতীয় স্তরে। উত্তরপ্রদেশের বাগপতের তরুণী পূজা গুপ্তা গিয়েছিলেন জাভেদ হাবিবের একটি ওয়ার্কশপে। পূজা নিজেও একটি পার্লারের মালিক, সেখানে নানা পরামর্শ দেওয়ার মাঝে পূজাকে মঞ্চে ডেকে নেন হাবিব। জানান যে চুলের যত্ন নেওয়ার একটি ‘ডেমো’ দেখাবেন। পূজা বেশ খুশি মনেই রাজি হয়েছিলেন। মঞ্চে উঠে তিনি হাবিবের কথা মতো বসে পড়েন চুল কাটার সিটে। কাজ শুরু করেন হাবিবও।

কিন্তু কিছুক্ষণ পরই সেই তাল কেটে যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় পূজা জানিয়েছেন, ”আমার চুল শ্যাম্পু করা ছিল না। উনি কাটতে কাটতে ঠিক আমার চুলের মাঝখানে থুতু ছেটালেন। তারপর বললেন – এই থুতুতে প্রাণ আছে”। আসলে, হাবিব বোঝাতে চাইছিলেন, পানির অভাবে কীভাবে চুলের যত্ন করা যায়। আর তার জন্য তিনি অন্যের চুলে স্রেফ থুতু ছিটিয়ে ডেমো দেখাতে চাইছিলেন। কিন্তু বিষয়টি হওয়ার পরই পূজা সেখান থেকে উঠে আসেন। এতটা গা ঘিনঘিনে ব্যাপার তার সহ্য হয়নি। এই তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় পূজা এও জানিয়েছেন যে তিনি রাস্তার ধারে সেলুনে গিয়ে চুল কাটবেন, তবু কোনওদিন আর হাবিবের কাছে যাবেন না।

মহিলার চুলে থুতু দেওয়ার ভিডিওটি ভাইরাল হতেই চাপে পড়ে ক্ষমা চেয়েছেন জাভেদ হাবিব। বিষয়টি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছিল না বলেই আত্মপক্ষ সমর্থনে বলছেন তিনি। কিন্তু তাতে বিতর্কে জল ঢালা যায়নি। জাতীয় মহিলা কমিশন বিষয়টি অত্যন্ত গুরুতর অপরাধ বলেই মনে করছে। কমিশনের চেয়ারপার্সন রেখা শর্মা উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজির কাছে চিঠি লিখে দাবি জানিয়েছেন, ভাইরাল ভিডিওতে যা দেখা যাচ্ছে, তার দ্রুত তদন্ত করে নিয়ে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক। এই আবেদন পেয়েই হাবিবের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়েরে দ্রুত পদক্ষেপ নেয় পুলিশ। গ্রেফতার করা হয় বিখ্যাত হেয়ার স্টাইলিস্টকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *