May 18, 2024

ফরচুন নিউজ ২৪

সাত মাস পর খুলছে সুন্দরবন

1 min read

দেশব্যাপী করোনা পরিস্থিতির কারণে সাত মাস বন্ধ থাকার পর ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ সাইড (বিশ্ব ঐতিহ্য এলাকা) সুন্দরবনে সব ধরনের ইকো ট্যুরিজমের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। আগামী ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) বন মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রধান বন সংরক্ষক (সিসিএফ) মো. আমির হোসাইন চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, দেশব্যাপী করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বন মন্ত্রণালয়। ওই নির্দেশে বলা হয় পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত গোটা সুন্দরবন জুড়ে এ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে।

বর্তমানে দেশে করোনা পরিস্থিতি স্বভাবিক হওয়ায় মঙ্গলবার (২৭ আক্টোবর) বন মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে সুন্দরবনে সব ধরনের পর্যটন বা ইকো ট্যুরিজমের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। এই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আগামী ১ নভেম্বর থেকেই করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন। তবে, ১ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনে কোনো ট্যুর অপারেটরা তাদের লঞ্চে একসাথে সর্বোচ্চ ৫০ জনের বেশি পর্যটক বহন করতে পারবেন না। একই সাথে সুন্দরবন বিভাগের পূর্বের সব নির্দেশনা মানতে হবে পর্যটক ও ট্যুর অপারেটরদের।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব সুন্দরবনের সভাপতি মো. মইনুল ইসলাম জমাদ্দার বন মন্ত্রণালয়ের এই সিদ্দান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণার পর সুন্দরবন কেন্দ্রীক ৭০টি ট্যুর অপারেটর কোম্পানির অর্ধশত লঞ্চ ও জাহাজের কয়েক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রায় সাত মাস ধরে বেকার হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করেছে। চরম আর্থিক সংকটে ছিলো তারা। মাত্র তিন থেকে চার মাস সুন্দরবনের পর্যটন মৌসুম। এরপর সারা বছর বসে বসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেই টাকায় চলতে হয়।

সুন্দরবনের ৯টি পর্যটন এলাকায় পর্যটন মৌসুমে (নভেম্বর থেকে মার্চে) হাজার হাজার মানুষ ঘুরতে আসেন। করোনার কারণে পর্যটন বন্ধ থাকলে সুন্দরবন কেন্দ্রিক পর্যটন শিল্পে ধস নামে। আগামী ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা প্রবেশ করতে দেওয়ায় বন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছে। এখন আমরা ১ নভেম্বর থেকে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মানাসহ সুন্দরবনে বন বিভাগের পূর্বের সব নির্দেশনা মানতে হবে দেশি-বিদেশি সব পর্যটকসহ আমরা কঠোর ভাবে মেনে চলব।

About The Author