শনি. অক্টো ২৩, ২০২১

Fortune News 24

ফরচুন নিউজ ২৪

উৎপাদন-কর্মসংস্থান বৃদ্ধিতে পুঁজিবাজার থেকে যাচ্ছে ১২শ কোটি টাকা

১ মিনিট পাঠের সময়

একটি দেশের অর্থনীতির ভিত্তি শক্তিশালী করার জন্য পুঁজিবাজার অন্যতম নিয়ামক শক্তি হিসেবে কাজ করে। অবদান রাখা দেশের শিল্পায়নে। উৎপাদন ও প্রবৃদ্ধি বাড়াতে সহযোগিতা করে পুঁজিবাজার। নতুন কমিশন দায়িত্ব নেওয়ার পর ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য পুঁজি সংগ্রহের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে ১১টি কোম্পানিকে।

বিএসইসি ও ডিএসই সূত্র মতে,১১ টি কোম্পানি বাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে ১ হাজার ২শ ৬৭ কোটি ৯ লাখ ৩৩ হাজার ৩৪০ টাকা সংগ্রহ করবে। এই টাকা দেশের শিল্পায়ন এবং কর্মসংস্থানের উন্নয়নের জন্য ব্যবহার করবে কোম্পানিটি।

সংশ্লিষ্টরা বলেন, দেশের অর্থনীতির উন্নয়নের জন্য অনেক বড় ভূমিকা রাখতে পারে দেশের পুঁজিবাজার। পুঁজিবাজার দেশের শিল্পায়নের অক্সিজেন হিসেবে কাজ করে। বিনিয়োগকারীদের অংশীদারিত্ব দেওয়ার মাধ্যমে বাজার থেকে পুঁজি সংগ্রক করে। এর মধ্যমে কোম্পানিগুলো ব্যবসা সম্প্রসারণ করে। বাড়ে দেশের উৎপাদন ক্ষমতা। এ কোম্পানি বড় হলে তৈরি হয় নতুন কর্মসংস্থান। যার সামগ্রীক প্রভাব পড়ে দেশের অর্থনীতির উন্নতির।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব পাবলিকলি লিষ্টেড কোম্পানিজের  (বিএপিএলসি) সভাপতি আজম জে. চৌধুরী বলেন, অর্থনীতির উন্নয়নের জন্য পুঁজিবাজার অনেক বড় ভূমিকা রাখতে পারে। দেশের অর্থনীতির উন্নয়নের স্বার্থে বড় বড় প্রকল্পের টাকা পুঁজিবাজার থেকে সংগ্রহ করা প্রয়োজন।

এএফসি ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা মাহবুব এইচ মজুমদার বলেন,কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজার থেকে পুঁজি নিয়ে ব্যবসা সম্প্রসারণ করতে পারে। এর ফলে বাড়বে কোম্পানির উৎপাদন ক্ষমতা। যার প্রভা পড়বে দেশের  কর্মস্থান বৃদ্ধিতে।

বিএসইসি সূত্র মতে, ১১টি কোম্পানির মধ্যে সব চেয়ে বেশি পুঁজি সংগ্র করছে রবি আজিয়াটা। কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ৫২৩ কোটি ৭৯ লাখ ৩৩ হাজার ৩৪০ টাকা উত্তোলন করবে।

দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে এনার্জিপেক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেড এবং লুব্রিফ (বাংলাদেশ) লিমিটেড। কোম্পানি দুটি পুঁজিবাজার থেকে আইপিওর মাধ্যমে ১৫০ কোটি টাকা করে উত্তোলন করবে।

আইপিওর মাধ্যমে অর্থ উত্তলনের দিক থেকে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে মীর আক্তার হোসাইন লিমিটেড। কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ১২৫ কোটি টাকা উত্তোলন করবে।

চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে দেশের ইলেক্ট্রকিন পণ্য উৎপাদনে জায়ান্ট কোম্পানি ওয়াল্টন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে নিয়েছে ১০০ কোটি টাকা।

এছাড়াও ইন্ডেক্স এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ৫০ কোটি টাকা,এসোসিয়েট অক্সিজেন ১৫ কোটি টাকা,এএফসি হেলথ্ ১৭ কোটি টাকা,ডমিনেজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেম ৩০ কোটি টাকা,ক্রিস্টাল ইন্সুরেন্স ১৬ কোটি টাকা এবং ওফিকা ফুডস এন্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নিবে ৩০ কোটি টাকা।