বৃহঃ. জুন ১৭, ২০২১

Fortune News 24

ফরচুন নিউজ ২৪

ইফতারে ছোলা খাওয়ার উপকারিতা

১ মিনিট পাঠের সময়

সারাদিনের রোজা শেষে ইফতারে এমন খাবার খাওয়া জরুরি যা স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী। তেমনই একটি স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিগুণে পরিপূর্ণ খাবার হচ্ছে ছোলা। যদিও বেশিভাগ রোজদাররাই ইফতারে ছোলা খেয়ে থাকেন, তবে কেবল স্বাদের জন্যই। ছোলা স্বাস্থ্যের জন্য কতটা উপকারী তা অনেকেই জানেন না।

ছোলার পুষ্টিগুণ

ছোলায় রয়েছে হরেক রকম পুষ্টিগুণ। ভিটামিন, খনিজ লবণ, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাসসহ আরও অনেক ধরনের উপাদান রয়েছে এতে। উচ্চ মাত্রার আমিষসমৃদ্ধ খাবার ছোলা। ছোলা কাঁচা, সিদ্ধ বা তরকারি হিসেবেও খাওয়া যায়। কাঁচা ছোলা ভিজিয়ে এবং খোসা ছাড়িয়ে কাঁচা আদার সঙ্গে খেলে প্রচুর আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিক পাওয়া যায়। আমিষ শক্তি দেয় এবং অ্যান্টিবায়োটিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

চলুন এবার জেনে নেয়া যাক ছোলা আমাদের যেসব রোগ থেকে দূরে রাখে সেগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত-

ডায়েবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ডায়েবেটিস নিয়ন্ত্রণের জন্য ছোলা উপকারী খাবার। এতে রয়েছে আমিষ, শর্করা ও তেল। তাই ডায়েবেটিস রোগীদের ছোলা খাওয়া উচিত। ছোলায় আরও রয়েছে ভিটামিন বি-১, ভিটামিন বি-২, ফসফরাস ও ম্যাগনেসিয়াম। এসবই শরীরের উপকার করে।

কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করে

ছোলায় রয়েছে আঁশ। যা কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করতে সহায়তা করে। ছোলা খেলে পায়খানা নরম হয়ে যায় এবং এর পরিমাণ বেড়ে যায়। তাই কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করতে বিশেষজ্ঞরা ছোলা খাওয়ার পরামর্শ দেন।

মেরুদণ্ডের ব্যথা দূর করে

ভিটামিন বি মেরুদণ্ডের ব্যথা কমিয়ে দেয়। ছোলায় পর্যাপ্ত ভিটামিন বি থাকায় মেরুদণ্ডের ব্যথা দূর হয়ে যায়। সে কারণে চিকিৎসকরা প্রতিদিন দু’বেলা ছোলা খেতে উৎসাহিত করেন।

হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়

অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা বলেছেন, ছোলা খেলে রক্তে কোলেস্টরলের পরিমাণ কমে যায়। যা হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে দেয়। এতে রয়েছে আঁশ, পটাসিয়াম, ভিটামিন সি এবং ভিটামিন বি-৬। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, যারা প্রতিদিন ছোলা খায়, তাদের হৃদরোগে মৃত্যুর ঝুঁকি ৪৯ শতাংশ কমে যায়।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

যাদের রক্তচাপের সমস্যা রয়েছে তারা প্রতিদিন দু’বেলা ছোলা খেতে পারেন। অ্যামেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, অল্পবয়সী নারীরা ফলিক অ্যাসিডযুক্ত খাবার খেলে হাইপারটেনশনের ঝুঁকি কমে যায়। ছোলায় ফলিক অ্যাসিড থাকায় হাইপারটেনশন বা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।

ক্যান্সার রোধ করে

কোরিয়ায় এক গবেষণায় দেখা গেছে, ছোলাসহ অন্যান্য ফলিক অ্যাসিডযুক্ত খাবার খেলে নারীদের কোলন ক্যান্সার এবং রেক্টাল ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। নিয়মিত ছোলা খাওয়ার মাধ্যমে অন্যান্য ক্যান্সার থেকেও সুরক্ষা পাওয়া যায়।

কোলেস্টেরল কমায়  

শরীরে বিভিন্ন অপ্রয়োজনীয় কোলেস্টরল জমা হয়। ছোলায় যে ফ্যাট বা তেল থাকে এসব কোলেস্টেরল কমাতে সেটি মুখ্য ভূমিকা পালন করে। এতে আমিষ, শর্করা ও তেল ছাড়াও আরও রয়েছে ভিটামিন ও খনিজ লবণ।