বুধ. এপ্রি ১৪, ২০২১

Fortune News 24

ফরচুন নিউজ ২৪

জয় শ্রী রাম’ স্লোগান শুনেই রেগে মঞ্চ ছাড়লেন মমতা  

১ মিনিট পাঠের সময়

নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর ১২৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কলকাতায় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।রাজনৈতিক নানা জল্পনার মধ্যেই এদিন অনুষ্ঠানের আগত দর্শকদের মধ্যে কেউ কেউ জয় শ্রীরাম ও মোদী স্লোগান দেন- তাতেই চরম ক্ষুব্ধ মমতা। রেগে ভাষণ না দিয়ে মঞ্চ ত্যাগ করেন তৃণমূল নেত্রী। ৬ ঘণ্টার সফরে নেতাজির জন্মদিনের বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত প্রায় সবকিছুই ঠিকঠাক চলছিল, নির্ধারিত সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কলকাতা পৌঁছালেন। সরকারি সূচির বাইরে গিয়েছিলেন নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর বাড়ি নেতাজি ভবনেও।  এরপর কলকাতার ন্যাশনাল লাইব্রেরির অনুষ্ঠান হয়ে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের মূল আয়োজন শুরু হয় সন্ধ্যার একটু আগে। সেখানেও শুরুর দিকে মোদী-মমতার ছন্দে ভাটা পড়েনি।কিন্তু পুরো অনুষ্ঠানের ছন্দে ছেদ পড়ল যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্ধারিত সময়ে বক্তব্য রাখতে উঠছিলেন মূল মঞ্চে .. মঞ্চে সমবেত বেশ কয়েকজন জয় শ্রীরাম, মোদী-মোদী ধ্বনিতে স্লোগান তোলেন। এতেই চরম ক্ষুব্ধ হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বক্তব্য না দিয়ে শুধু প্রতিক্রিয়া জানিয়েই মঞ্চ থেকে নেমে পড়েন।

যদিও তার পরের বক্তা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মুখ মমতার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া নিয়ে উচ্চারিত হয়নি একটু শব্দও। বরং কথায় কথায় তিনি বাংলার, বাংলার মনীষীদের ঢালাও ভাবে প্রশংসা করে গেছেন।  এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এটা রাজনৈতিক অনুষ্ঠান নয়। সরকারি অনুষ্ঠান। কাউকে আমন্ত্রণ জানালে ন্যূনতম সৌজন্যতা দেখাতে হয়। আমি এর প্রতিবাদ করছি আর সে কারণেই আমি কিছু বলবো না।

ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামী নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর ১২৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কলকাতার নানা কর্মসূচিতে অংশ নিতে বিকেলে কলকাতায় পৌঁছান। আগামী মে মাসের মমতার রাজ্যে বিধানসভা ভোট। সম্প্রতি তৃণমূল কংগ্রেসের কয়েকজন মন্ত্রী পদত্যাগ করে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন, বিজেপি যেতে পারেন এমন বেশ কয়েকজন শীর্ষ তৃণমূল নেতার নামও হাওয়া ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এমন বাস্তবতায়, মোদীর অনুষ্ঠানে মমতা হাজির হবেন কিনা সেটা নিয়েই প্রশ্ন ছিল, আর যখন হাজির হলেন; তখন এই ধরণের একটি স্লোগান এবং তার প্রতিক্রিয়া ভাষণ না দিয়ে উষ্মা প্রকাশ করে অনুষ্ঠান ত্যাগ- নতুন করে আলোচনার জন্ম দিলো বৈকি।