রবি. মার্চ ৭, ২০২১

Fortune News 24

ফরচুন নিউজ ২৪

ঐতিহ্যকে সঙ্গে নিয়ে ৫৬ বছরে পা রাখলো বিটিভি

১ মিনিট পাঠের সময়

বাংলাদেশের সরকারি গণমাধ্যম বাংলাদেশ টেলিভিশনের ৫৫তম বর্ষপূর্তি কাল। দর্শকের কাছে পৌঁছাতে যুগোপযোগী পরিবর্তনের অঙ্গীকার আর প্রত্যয়ের মধ্য দিয়ে এবার ৫৬ বছরে পা রাখতে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি।

এ উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার বিটিভির রামপুরা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিটিভির মহাপরিচালক এসএম হারুন-অর-রশীদ, অনুষ্ঠান ও পরিচালনা পরিচালক জগদীশ এষ, উপ-মহাপরিচালক (অনুষ্ঠান) ড. তাসমিনা আহমেদ, উপ-মহাপরিচালক (বার্তা) অনুপ খাস্তগীর, ঢাকা কেন্দ্রের জেনারেল ম্যানেজার নাসির মাহমুদসহ দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও প্রযোজকবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে মহাপরিচালক হারুন-অর-রশীদ বলেন, গণমানুষের তথ্য প্রাপ্তির অধিকার ও বিনোদনের যে সাধারণ চাহিদা তা আমরা নিশ্চিত করার চেষ্টা করে থাকি বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে। দেশের প্রধান গণমাধ্যমকে তো পিছিয়ে থাকলে চলে না; তাই একবিংশ শতাব্দীতে এসে অন্যান্য টেলিভিশনের মতো আমরাও যুগোপযোগী হতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, আমরা ডিজিটাল কনটেন্ট ও প্রোগ্রাম তৈরি করছি, যেগুলো এই মুজিবশতবর্ষে শিগগিরই প্রচারে যাবে। বিটিভি নতুন নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার চেষ্টা করছে। বিটিভির অনুষ্ঠান ক্রমশই আধুনিক হচ্ছে এবং বিষয়-বৈচিত্র্য সাজানো জনবান্ধব অনুষ্ঠানের সংখ্যা বৃদ্ধি করা হচ্ছে। আমরা দর্শককে আরো বেশি বিটিভির সঙ্গে সংযুক্ত করতে খবর ও বিনোদনের পাশাপাশি দর্শকবান্ধব অনুষ্ঠানের দিকেও গুরুত্ব দিচ্ছি।

১৯৬৪ সালের ২৫ ডিসেম্বর ফেরদৌসী রহমানের গাওয়া গান দিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল আজকের বিটিভি। ঢাকার ডি.আই.টি ভবনে (বর্তমান রাজউক ভবন) তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশন কর্পোরেশনের ঢাকা কেন্দ্র উদ্বোধন করা হয়।

১৯৯৬ সালের ১৯ ডিসেম্বর চট্টগ্রামে বাংলাদেশ টেলিভিশনের একটি নতুন পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্র স্থাপিত হয়। বর্তমানে ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রামে বিটিভি’র আলাদা পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্র আছে। এছাড়া দেশের ১৪টি স্থানে আছে উপ-কেন্দ্র এবং ‘বিটিভি ওয়ার্ল্ড’ নামক বৈশ্বিক চ্যানেল।

স্বাধীনতার পর এর নাম রাখা হয় বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি)। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে আধুনিক প্রযুক্তি সংযুক্ত করে ১৯৭৫ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি ডিআইটির ক্ষুদ্র পরিসর থেকে রামপুরায় টেলিভিশন কেন্দ্র স্থানান্তর করা হয়।