মঙ্গল. অক্টো ২৭, ২০২০

Fortune News 24

ফরচুন নিউজ ২৪

কিগালি হতে শিক্ষণীয় : বাংলাদেশকেও বিনিয়োগ বান্ধব করা সম্ভব

১ মিনিট পাঠের সময়

রুয়ান্ডার রাজধানী কিগালি আজ আফ্রিকার সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন রাজধানীতে রূপান্তরিত হয়েছে। বিনিয়োগের জন্য রুয়ান্ডা বিশ্বদরবারে প্রশংসনীয়, সমাদৃত ও আলোচিত। বিনিয়োগ বান্ধব দেশ রুয়ান্ডাকে বাংলাদেশ অনুসরণ করতে পারে ।
আসুন জেনে নেই রুয়ান্ডা সম্পর্কে চমকপ্রদ তথ্য….

১: রুয়ান্ডা তাদের গৃহযুদ্ধ সময়ের অতীত বৎসর ১৯৯৪ নিয়ে কথা বলতে চায়না । তাদের কাউকে ১৯৯৪ নিয়ে কিছু জিজ্ঞেস করলেই সরি বলে মাফ চায় । তারা এটা নিয়ে বেশি ভাবতেও চায় না ।
২: প্রেসিডেন্ট পল কাগামে – তিনি নিজেও যোদ্ধা ছিলেন, উচ্চ শিক্ষিত মানুষ । তারা তাদের দেশে দুর্নীতিকে রোধ করতে পেরেছে ।
৩: কোনো বিদেশি নাগরিক সেখানে কোনো কোম্পানি খুলতে চাইলে, কোনো দেশের মত মাসের পর মাস সময় লাগে না।  অনলাইন (One Stop Service) এ আবেদন করে ফি দেয়ার পর কাগজপত্র আপলোড করে দিলে ৬ ঘন্টার মধ্যে লাইসেন্স হয়ে যায় । প্রতি ধাপে তারা জানিয়ে দেয় যে কাগজ কোন মন্ত্রনালয়ে আছে। যে কোনো দেশের নাগরিক কোম্পানির ১০০% মালিকানা নিতে পারে । এটা আমাদের দেশের জন্য Export Promotion Bureau (EPB) হতে পারে । এটা অনুসরণ করে বাংলাদেশকে বিনিয়োগ বান্ধব করা যেতে পারে ।
৪: পুরোপুরি পলিথিন ফ্রি দেশ রুয়ান্ডা। দিনে ৫ বার শহরের প্রতিটি ড্রেন পরিস্কার করা হয় ।

৫: মাসের শেষে কোনো একদিন তারা সবাই যে যেখানে আছে সকাল ৬-১২ টা তাদের এলাকা পরিস্কার করে কাজে যায়। নিজেদের এলাকার ড্রেন পরিস্কার করে। রাস্তাঘাটের ময়লা পরিস্কার করে। কেউ এটাতে অংশগ্রহন না করলে তাকে গ্রাম প্রধানের কাছে জবাবদিহি করতে হয়।

৬: আফ্রিকার সবচেয়ে পরিস্কার দেশ রুয়ান্ডা। সেই সাথে নিরাপদ। যে কোনো মেয়ে রাত তিনটাতেও বের হয়ে নিরাপদে চলাচল করতে পারে।
৭: সিটি বাস সার্ভিসে জ্যাম নাই। কারণ এ দেশে রয়েছে যাত্রী সেবার জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক যানবাহন।
৮: বর্তমানে আফ্রিকার সব বিজনেস কনফারেন্স সুষ্ঠু ভাবে আয়জনের দিক দিয়ে রুয়ান্ডা দ্বিতীয়।
৯: বিজনেস ইনডেক্স মানে বিজনেস করার র‌্যাংকিংয়ে রুয়ান্ডা এখন ২৯ তম দেশ। মানে স্পেনের চাইতেও তারা এগিয়ে। পাশের দেশ উগান্ডা ১১৩তম, পাকিস্তান ১১৬তম, আর আফগানিস্তান ১৬৮তম।

১০: মাসে একদিন কার ফ্রি ডে । রাস্তায় কোনো গাড়ি চলে না সেদিন। সবাই আনন্দ করতে বের হয়। এটা করা হয়েছে মেন্টাল হেলথ এর কথা চিন্তা করে।

ভাবতে পারেন ১৯৯৪ থেকে ২০২০ সময়ে রুয়ান্ডা কোথায় গেছে! এই তো কদিন আগেও আমাদের শান্তিরক্ষীরা রুয়ান্ডাতে গিয়ে তাদের পাশে ছিল। আর মাত্র ২৫ বছরে রুয়ান্ডার ব্যণিজ্য বান্ধব পরিবেশের স্থান স্পেনের থেকে উপরে!!!

রুয়ান্ডা যা পেরেছে – তা আমরা পারবোনা কেন ! সবকিছু নিয়মে নিতে হবে, বাংলাদেশকে সমৃদ্ধশালী করতে হবে।

আমরা রুয়ান্ডাকে অনুসরণ করে বাংলাদেশকে বিনিয়োগের জন্য রোল মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে পারি। One Stop Service চালু করে বাংলাদেশকে বিনিয়োগ বান্ধব দেশে পরিগণিত করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করতে পারি ।

লেখক : জনাব মিজানুর রহমান

চেয়ারম্যান, ফরচুন গ্রুপ অব কোম্পানিজ