রবি. সেপ্টে ২০, ২০২০

Fortune News 24

ফরচুন নিউজ ২৪

ইউএনও ওয়াহিদার দুই ড্রাইভার আটক

১ মিনিট পাঠের সময়

ঘোড়াঘাট উপজে’লা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা উম’র আলী শেখকে হ’ত্যা চেষ্টা মা’মলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইউএনও’র গাড়ি চালক হাফিজ ও ইয়াসিন নামের দুইজনকে আ’ট’ক করেছে পু’লিশ।

সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার পর তাদেরকে আ’ট’ক করে পু’লিশ। বর্তমানে থা’না হেফাজতে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

এর আগে গৃহকর্মী জবেদা ও আসোলাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আ’ট’ক করলেও তাদের মধ্যে জবেদাকে ছেড়ে দেয় পু’লিশ এবং আসোলাকে এখনও জিজ্ঞাসাবাদ করছে পু’লিশ।

এদিকে রোববার (০৬ সেপ্টেম্বর) রি’মান্ডে নেওয়া আ’সামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে গোয়েন্দা সংস্থা (ডিবি)। সোমবার সারাদিন জে’লা পু’লিশ সুপার কার্যালয়ে ডিবি হেফাজতে তিন আ’সামি ছাড়াও আরো ৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

মা’মলার ত’দন্ত কর্মক’র্তা ডিবির পরিদর্শক ই’মাম জাফর এর নেতৃত্বে ৭ দিনের রি’মান্ডে নেওয়া প্রধান আ’সামি আসাদুল ইস’লাম, সহযোগী নবিরুল এবং সেন্টুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তিনজনের কাছে পাওয়া তথ্য মিলিয়ে ঘটনার নেপথ্যসহ সব বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ চিত্র বের করার চেষ্টা করছেন তিনি।

ঘটনাটি চু’রির বলে দাবি করা হলেও ত’দন্ত কর্মক’র্তা ডিবির পরিদর্শক ই’মাম জাফর রোববার বলেছেন, এর পেছনে অন্য কোনো কারণ রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ৭ দিনের সময় পাওয়ায় ধীরস্থিরভাবে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছেন ওই ত’দন্ত কর্মক’র্তা।

এছাড়া প্রধান আ’সামি আসাদুলের ছোট ভাই আশরাফুল ইস’লাম শাওন, বাগানের মালি সুলতান কবির এবং (গ্রে’ফতার সেন্টুর নিকট আত্মীয়) আদ্দাল্লি (পিওন) শ্যামল কুমা’রকে শনিবার থেকে হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে ঘোড়াঘাট থা’না পু’লিশ।

তবে ঘোড়াঘাট থা’নার ওসি আমিরুল ইস’লাম জানিয়েছেন, এই পাঁচজনকে গ্রে’ফতার অথবা আ’ট’ক দেখাননি তারা। তথ্য জানতে শুধু জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার আ’হত ঘোড়াঘাট উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তার ভাই শেখ ফরিদ উদ্দিন বাদী হয়ে অ’জ্ঞাত নামা স’ন্ত্রাসীদের আ’সামি করে ঘোড়াঘাট থা’নায় একটি মা’মলা দায়ের করেন।