ফরচুন নিউজ ২৪

স্পেন-ইতালি : দুই ফেবারিটের ফাইনালে ওঠার লড়াই আজ

1 min read

এবারের ইউরোয় যে কয়টি দেশকে ফেবারিট ভাবা হচ্ছিল শুরু থেকে, তাদের অনেকেই বিদায় নিয়েছে এরই মধ্যে। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল, ফেবারিট ফ্রান্স, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম কিংবা ক্রোয়েশিয়া- সবার বিদায় হয়েছে সেমিফাইনালে ওঠার আগেই।

বাকি আছে তিন ফেবারিট। ইতালি, স্পেন এবং ইংল্যান্ড। এর মধ্যে আজ বিদায় ঘটবে একটি দলের। স্পেন কিংবা ইতালি। আজ রাতে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হচ্ছে ইউরোপের অন্যতম সেরা এই দুটি দল। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় লন্ডনের বিখ্যাত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শুরু হবে এই মহারণ।

এবারের ইউরোয় এখনও পর্যন্ত যেভাবে খেলে আসছে ইতালি, তাতে তাদেরকেই সেরা বলতে বাধ্য হবেন যে কেউ। কঠিন সত্য হলো, আজ হয়তো স্পেনেরই বিদায় ঘটতে পারে। তবে ফুটবলের সৌন্দর্যের সর্বোচ্চটুকু হয়তো দেখা যাবে আজ।

স্পেনের রয়েছে তিকিতাকা। যদিও পেপ গার্দিওলার প্রবর্তন করা সেই তিকিতাকা এখন নিভু নিভু প্রায়। লুইস এনরিকে তিকিতাকার মিশেলে চেষ্টা করেন আক্রমণাত্মক খেলার ছক সাজাতে। সে তুলনায়, ইতালিই এবার যেন তিকিতাকার সর্বোচ্চ ধারক-বাহক। মাঠে অসাধারণ ফুটবল উপহার দিচ্ছে রবার্তো মানচিনির শিষ্যরা।

মূলতঃ মিডফিল্ড যাদের দখলে থাকে, ম্যাচ তাদেরই পকেটে। দুই দলের দিকে চোখ রাখলেই বোঝা যায় সেটা। আজ্জুরিদেরই সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি, লা রোজাদের নয়।

কোয়ার্টার ফাইনালে ফিফা র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে থাকা বেলজিয়ামকে ২-১ গোলে হারিয়ে সেমিতে জায়গা করে নেয় ইতালি। অন্যদিকে কোয়ার্টারে তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ সুইজারল্যান্ডকে পেয়েছিল স্পেন। নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র থাকার পর, অতিরিক্ত সময় এরপর টাইব্রেকারে যেতে হয়েছিল স্পেনকে।

হেড টু হেড পরিসংখ্যান বিচার করলে কিন্তু স্পেনই এগিয়ে। এখনও পর্যন্ত ইতালির বিপক্ষে ৩৪টি ম্যাচ খেলেছে স্পেন। এর মধ্যে জিতেছে ১২টি ম্যাচ, ১৩টিতে ড্র করেছে এবং হেরেছে ৯টিতে। সর্বশেষ দুই দল মুখোমুখি হয়েছিল ২০১৭ সালে। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে। সেবার স্পেন জিতেছিল ৩-০ গোলে।

তবে, বড় টুর্নামেন্টগুলোতে ইতালির সাফল্য সবচেয়ে বেশি। চারটি ম্যাচ জিতেছে ইতালি, ড্র করেছে চারটিতে এবং হেরেছে কেবল একটিতে। যদিও ওই হারটি ছিল ২০১২ ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ইতালিকে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল স্পেন। এর আগে ২০০৮ ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যাচটি ছিল ড্র। তবে নকআউট হওয়ার কারণে টাইব্রেকারে ইতালিকে ৪-২ ব্যবধানে হারায় স্প্যানিশরা।

২০১৬ ইউরোর দ্বিতীয় রাউন্ডে এসে প্রতিশোধ নিতে পেরেছিল ইতালি। সেবার স্পেনকে ২-০ গোলে স্পেনকে বিদায় করে দিয়েছিল ইতালিয়ানরা। গোল করেছিলেন কিয়েল্লিনি এবং পেল্লে। এবারের ইউরোতে ইতালি একমাত্র দল যারা এখনও পর্যন্ত সবগুলো ম্যাচ জিতেছে।

ইতালির সামনে দুর্দান্ত একটি রেকর্ড হাতছানি দিচ্ছে এবার। স্পেনের বিপক্ষে তারা মাঠে সামবে টানা ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড তৈরি করতে। ফুটবল ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত যা তৃতীয় সর্বোচ্চ টানা অপরাজিত থাকার রেকর্ড। ৩৫টি করে ম্যাচ অপরাজিত থেকে রেকর্ড সৃষ্টি করে আছে ব্রাজিল এবং স্পেন।

তবে ইতালির জন্য একটু চিন্তার বিষয় হলো, স্পেনে গোল স্কোরার অনেক। কারণ স্প্যানিশরাই একমাত্র দল যারা এবারের ইউরোয় টানা দুই ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে ৫বার করে বল জড়িয়েছে। স্লোভাকিয়া এবং ক্রোয়েশিয়া। যদিও সুইজারল্যান্ড দেখিয়েছে কিভাবে আটকে রাখতে হয় স্পেনের স্কোরারদের।